আপনি কি আউটসোর্সিং কাজে আগ্রহী? তাহলে আপনার জন্য এই পোস্টটি………!!!!

Print Friendly

বিশ্বজুড়ে শ্রমবাজারে ব্যাপক পরিবর্তন আনছে ইন্টারনেটে শ্রম বিনিময় ও অনলাইনে কাজের মাধ্যমে অর্থ উপার্জন। পিছিয়ে নেই বাংলাদেশও। স্বল্প সময়ে সহজে আয়ের সুযোগ থাকাতেই ইল্যান্স, ওডেস্ক, ফ্রিল্যান্সার নামে অনলাইন মার্কেটপ্লেসগুলোতে বাংলাদেশের তরুণ ফ্রিল্যান্সারদের সংখ্যা বাড়ছে আর তাঁরা কাজও করে যাচ্ছেন সমান দক্ষতায়। কিন্ত আমি লক্ষ্য করেছি যে, আমাদের আদিবাসি ফ্রীলাঞ্চার নাই বললেই চলে! কিন্ত অন্য দিকে বাঙ্গালিরা খুব জড়োভাবে ইনকাম করছে। ঘরে বসেও অনলাইনে আয় করা যায়। ওডেস্ক, ফ্রিল্যান্সার, ইল্যান্সের মতো অনলাইন মার্কেপ্লেসে কাজ করছেন বাংলাদেশের অনেক ফ্রিল্যানসার। নতুন যারা কাজ করতে চাই তাদের জন্য আমার কিছু পরামর্শ!

outsourcing-projects-for-succedd

১. থাকতে হবে কাজের দক্ষতা, উদ্যোগ, ধৈর্য, অনলাইন উপস্থিতি, পেশাদারিত্ব, মনোযোগ।

২. ইংরেজিতে যোগাযোগ দক্ষতা থাকতে হবে, কাজের বর্ণনা বুঝতে হবে, সামাজিক যোগাযোগে দক্ষতা থাকতে হবে।

৩. দ্রুত গতির ইন্টারনেট সংযোগ, ভালো মানের কম্পিউটার থাকতে হবে। কাজের পরিবেশ থাকতে হবে।

৪. কাজের মনস্থির করে প্রথমেই খুলতে হবে অ্যাকাউন্ট। শক্ত পাসওয়ার্ড দিয়ে অ্যাকাউন্টটি ভালোভাবে তৈরি করতে হবে।

৫. নিজের প্রোফাইলটিকে সুন্দর করে সাজানো দরকার সবার আগে। প্রোফাইলে নিজের কাজের দক্ষতা উল্লেখ করতে হবে।

৬. প্রোফাইল তৈরির পর টাকা ধৈর্য ধরে বিড করতে হবে।

৭. দক্ষতার জন্য পরীক্ষা দেওয়া যায় এবং তাতে ভালো স্কোর কাজ পেতে সাহায্য করবে।

৮. আপনার পছন্দের কাজে জন্য বিড করতে পারেন। বিড করার জন্য বায়ারের চাওয়া দক্ষতাগুলো তুলে ধরতে পারলে কাজ পাওয়া সহজ।

স্বল্প সময়ে কম পারিশ্রমিকে জটিল কাজের সমাধান দিচ্ছেন ফ্রিল্যান্সাররা। যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, কানাডা, অস্ট্রেলিয়ার মতো উন্নত দেশগুলো থেকে আসছে নানা কাজ। বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান অনলাইন মার্কেটপ্লেসগুলোতে কাজের অর্ডার দিয়ে দক্ষ শ্রমিক বাছাই করে স্বল্প সময়ে, কম পারিশ্রমিকে কাজ করিয়ে নিচ্ছে।

আদিবাসি যুব সমাজ উন্নতি হউক আমি চাই…।!!!! আপনার মেধা কাজে লাগানোর এতাই সুযোগ! আরও বিস্তারিত জানতে ক্লিক করুন

পোস্টটি ভালো লাগলে কমেন্টস করতে বুলবেন কেন????

Share This Post

Post Comment

Please Answer.. * Time limit is exhausted. Please reload CAPTCHA.